মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২nd ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সোনারগাঁও জাদুঘরে ‍"সেবা সপ্তাহ ও ইনোভেশন শোকেসিং" এর শুভ উদ্বোধন।উদ্বোধন করেন ফাউন্ডেশন পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপ।


প্রকাশন তারিখ : 2019-02-02

ফাউন্ডেশনের সেবাসমূহ সেবাগ্রহীতাদের কাছে সহজলভ্য ও অবগতি করার নিমিত্ত ‍"সেবা সপ্তাহ" চালু করা হয়েছে। "সেবা সপ্তাহ" উদ্বোধন করেন ফাউন্ডেশন পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপ।

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে সোনারগাঁও জাদুঘর

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ একটি প্রত্যয়, একটি স্বপ্ন,যা বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সময়ে সবচেয়ে আলোচিত বিষয়। বিরাট এক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে। একুশ শতকে বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে ৬ জানুয়ারি ২০০৯ সালে শেখ হাসিনা বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দ্বিতীয়বারের মতো শপথ নেন। ২০২০ সালে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন ও ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালনের বছরে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশ এবং তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণই ছিল তাদের নির্বাচনী ইশতেহারের প্রধান বিষয়।সেলক্ষ্যে সরকারের সকল কর্মসূচি এগিয়ে চলেছে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তাদের বর্তমান ও বিগত নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষণা করেছিলেন ‘২০২১ সালে স্বাধীনতার ৫০ বছরে বাংলাদেশ ‘ডিজিটাল বাংলাদেশে’ পরিণত হবে।একটি উন্নত দেশ, সমৃদ্ধ ডিজিটাল সমাজ, একটি ডিজিটাল যুগের জনগোষ্ঠী, রূপান্তরিত উৎপাদনব্যবস্থা, নতুন জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতি—সব মিলিয়ে একটি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনের স্বপ্নই দেখিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ডিজিটাল বাংলাদেশ বস্তুত জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার প্রথম সোপান। একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের জন্য যে সমৃদ্ধি ও উন্নত জীবন প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছিলাম, ডিজিটাল বাংলাদেশ আমাদের সেই স্বপ্ন পূরণ করবে।

অর্জন

লোকশিল্পে সমৃদ্ধ বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন সরকারের এই দৃঢ় প্রত্যয়কে সামনে রেখে বিগত বছরগুলোতে বেশ কয়েকটি ডিজিটাল সেবা চালু করেছে যার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সুবিধা ভোগ করছে লাখো মানুষ। ২০১৬ সালের ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে বাংলাদেশ বিমান ও বাংলাদেশ রেলওয়ের পর তৃতীয় সরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে ফাউন্ডেশনের সকল প্রকার টিকিট ক্রয়ের অনলাইন “ই-টিকিটিং” সার্ভিস চালু করেছে। ২০১৭ সালের  ১১ নভেম্বর মাসব্যাপী লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবে স্টলগ্রহীতাদের আবেদন প্রক্রিয়া সহজীকরণের লক্ষ্যে টেলিটকের কারিগরি সহযোগিতায় অনলাইনে “স্টল আবেদন প্রক্রিয়া” সেবা চালু করে। ২০১৮ সালের ৩০ জুন ফাউন্ডেশনের তথ্যসমৃদ্ধ অ্যান্ড্রয়েড “মোবাইল অ্যাপস” উন্মুক্ত করা হয়। সম্প্রতি ২০১৯ সালের ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে “IVR Based হেল্পডেস্ক” সেবা চালু করা হয়েছে। এছাড়াও অভ্যন্তরীণ হিসাব ব্যবস্থাপনা সহজীকরণের লক্ষ্যে অ্যাকাউন্টিং সফটওয়্যার, ফাউন্ডেশনে সংরক্ষিত নিদর্শন দ্রব্যের তথ্য, লাইব্রেরিতে বিদ্যমান বইয়ের তথ্য, কারুশিল্পী জরিপ তথ্য ও স্টোর ব্যবস্থাপনা সহজতর করার লক্ষ্যে “ডাটাবেজ সফটওয়্যার" তৈরি করা হয়েছে। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতিদিনের হাজিরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে রেকর্ড রাখার সুবিধার্থে “ডিজিটাল অ্যাটেনডেন্স সিস্টেম”  চলমান রয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অফিসিয়াল পেজ ও ইউটিউবে চ্যানেল খোলা হয়েছে। ফাউন্ডেশনের তথ্যসমৃদ্ধ প্রামাণ্যচিত্র “ঐতিহ্য ও লোকশিল্পে সমৃদ্ধ স্বপ্নময় সোনারগাঁও” নির্মিত হয়েছে যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, ইউটিউব এবং ফাউন্ডেশনের প্রশাসনিক ভবনের সম্মুখে প্রতিস্থাপিত “জায়ান্ট স্ক্রিণে” প্রদর্শিত হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এই প্রামাণ্যচিত্রটি পনের লক্ষেরও অধিক পরিদর্শিত হয়েছে সেইসাথে ফাউন্ডেশনের প্রশাসনিক ভবনের সম্মুখে প্রতিস্থাপিত “জায়ান্ট স্ক্রিণ” এর মাধ্যমে বছরব্যাপী ফাউন্ডেশনে আগত প্রায় দশ লক্ষাধিক দর্শানার্থীর কাছে প্রদর্শনের সুব্যবস্থা করা হয়েছে।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা

ইতোমধ্যে চালুকৃত সকল ডিজিটাল সেবাগুলোর বাইরেও আরো কয়েকটি ই-সেবা চালুর ভবিষ্যত পরিকল্পনা রয়েছে। তারমধ্যে ঘরে বসে জাদুঘরের গ্যালারী পরিদর্শন ব্যবস্থার অনলাইন "ভার্চুয়াল গ্যালারী” বছরব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালা অনলাইন ও সোস্যাল মিডিয়ায় ব্রডকাস্ট কোয়ালিটির “লাইভ টেলিকাস্ট” সেবা ও বারকোডের মাধ্যমে তথ্য প্রদান “i-Guide” সেবা পর্যায়ক্রমে চালু করা হবে।

পরিশেষে

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র প্রতিশ্রুত “ডিজিটাল বাংলাদেশ” ও সর্বোপরি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের “সোনার বাংলা” বিনির্মাণে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের লক্ষ্য থাকবে অটুট ও অবিচল।


Share with :

Facebook Facebook